সপ্তাহে কমপক্ষে ৩-৫ দিন ১ ঘন্টা হাটুন/দৌড়ান, প্রতিদিন কমপক্ষে ৩-৪ লিটার পানি পান করুন।

weight loss a lonely battle with yourself

Last Updated on June 23, 2017 by Motu Group Team

অনেকে বলেন আমি ২ দিনের বেশি ডায়েট করতে পারি না বা আমি অনেক অলস। তাই আজকে আমি আমার কিছু নিজের কথা আপনাদের বলব।আগেই বলে রাখি আমি কিন্তু কোন ডায়েট বিশেষজ্ঞ না।যা বলব সব নিজের অভিজ্ঞতা থেকে,ভুল হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

ছোট বেলা থেকেই আমি মোটা আর অলস।খুবই খেতাম।সুখে দুখে সব সময় খেতাম। মানুষ সিনেমা দেখে পপকন নিয়ে আমি দেখতাম ভাত নিয়ে।দিনে৪-৫ বার ভাত খেতাম। কলেজ এ থাকতে আমি প্রথম ডায়েট শুরু করি কিন্তু কোন লক্ষ্য ছিল না।৬ মাস এর মত করেছিলাম কিছু ওজনও কমেছিলাম কিন্তু তেমন কিছু না।লক্ষ্য না থাকায় ডায়েট তা ধরে রাখতে পারি নি ফলাফল মাঝ পথে ডায়েট ছেড়ে দিয়েছিলাম।তাই আস্তে আস্তে আগের থেকেও মোটা হয়ে গেলাম।২০১৫ সালে আমি একটা লক্ষ্য নিয়ে ডায়েট শুরু করেছিলাম সাথে ছিল রাতুল ভাইয়ের ১২০০ কালরির চার্ট(এখনও ভাইয়ের চার্ট ফলো করছি) । প্রথমে কষ্ট হত,ভাবতাম ধুর আর এই সব ভাল লাগে না,সব ডায়েট ফায়েট ছেড়ে দিব তখনি আমার ঐ লক্ষ্যের কথা মনে করতাম আর ডায়েট করার মনোবল ফিরে পেতাম।আর কখন যদি ভুলে কিছু খেয়ে ফেলি তাহলে ওটা নিয়ে অনুশুচনা করতাম না।যা খেয়েছি টা খেয়েছি সেটা নিয়ে অনুশুচনা করলে মন আরও খারাপ হত।তাই ভাবতাম কি করে বাড়তি ক্যালরি ক্ষয় করা যায়। লক্ষ্য যত শক্ত হবে চলার পথ তত সহজ হবে। ব্যায়ামাগারেও একই অবস্থা যেতে ভাল লাগত না।বায়ামের মাঝ পথে থেমে যেতে ইচ্ছা করত তখনই বের করতাম আমার ক্ষেপণাস্ত্র “লক্ষ্য”।আমার লক্ষ্যই আমাকে এত দূর নিয়ে এসেছে।এখন ডায়েট আর ব্যায়াম আমার অভ্যাসে পরিণত হয়ে গেছে।এই সারা এখন আর ভাল লাগে না। প্রতিদিন ভাবি আজকে ফাটায় খাব আর ব্যায়াম করব না কিন্তু শেষ এ এসে আমার অভ্যাস বাতিক্রম হয় না।বেশি না কষ্ট করে ১৫দিন ডায়েট টা ধরে রাখলে তা অভ্যাস এ পরিনত হয়ে যায়।আমি কোন টক দই,কালাজিরা,লেবু গরম পানি ইত্যাদি খাইনি কারণ ডায়েট এর শুরুতে রাতুল ভাই আর আমার জিম এর ভাই বলেছিল ডায়েট আর ব্যায়াম না করলে এই সব কিছুই কাজ হবে না।রাতুল ভাই বলেছিল স্বাস্থ্যকর ডায়েট করতে তাই আমি কিটো,জি এম ইত্যাদি করি নি।

তাই যারা ওজন কমাবেন,তারা আগে লক্ষ্য স্থির করুন।মোবাইল এ কিছু বিদেশি মানুষ এর বিফর আফটার ছবি রাখুন বা আমাদের গ্রুপ এর “বদলে যাওয়ার গল্প “থেকে ছবি গুলো নিতে পারেন।মনোবল টলমল করলেই ছবি গুলো দেখুন আর ভাবুন এরা এত কেজি কমালে আমি কেন ১০-২০ কেজি পারব না।দেখবেন ঠিক লক্ষে পৌছে গেছেন।আর যে কোন প্রয়োজনে শারমিন সুলতানা ক্যাথি আপু আর Ratul Dutta ভাই ত আছেই।

আমাদের উদ্দেশ্য টিম ওয়ার্কের মাধ্যমে সঠিক তথ্য দিয়ে সবাইকে স্বাস্থ্য সচেতন করে তোলার চেষ্টা করা এবং বাড়তি ওজন কমিয়ে ফেলতে অনুপ্রাণিত করা। আমরা বিশ্বাস করি একজন মানুষকে স্বাস্থ্য সচেতন করে তোলা মানে এর পাশাপাশি তার পরিবারকেও স্বাস্থ্য সচেতন করে তোলা। এভাবে আমরা একদিন দেশের সব পরিবারে সুস্বাস্থ্যের বার্তা পৌঁছে দিতে পারব।

Leave a comment

Leave a Comment

0 Shares
Tweet
Share
Share
Pin