সপ্তাহে কমপক্ষে ৩-৫ দিন ১ ঘন্টা হাটুন/দৌড়ান, প্রতিদিন কমপক্ষে ৩-৪ লিটার পানি পান করুন।

ওজন কমাবেন?? কোথা থেকে শুরু করবেন?কিভাবে শুরু করবেন?

Last Updated on June 19, 2017 by Motu Group Team

আবারো বলে নিচ্ছি ওজন কমানো একটা শারীরিক,মানসিক পরিশ্রমের কাজ(কষ্টসাধ্য)।শারীরিক পরিশ্রম করা গেলেও মানসিক দৃড়তা না থাকলে ওজন কমানোর যাত্রায় আপনি সফল হতে পারবেন না।আজ এখনি সিদ্ধান্ত নিন আপনি ওজন কমাতে চান,সুস্থ, সুন্দর,ভাবে বাঁচতে চান।

কিভাবে শুরু করবেন ভাবছেন?

প্রথমেই আপনার এমনকিছু অভ্যাস ছাড়তে হবে যা সাস্থ্যসম্মত নয়,তবে আপনি এতদিন এগুলো করে আসছেন।যেমন রাত জাগা,দেরি করে বিছানা ছাড়া,ছোটখাটো কাজ অন্যকে দিয়ে করানো, যখন যা কিছু ইচ্ছে খাওয়া শুরু করা,পরিমাণ ছাড়া, লাগামহীন খাওয়াদাওয়া।

শুরুতে কি কি বাদ দেবেন খাবারদাবার?

অতিরিক্ত লবণাক্ত, চিনিযুক্ত খাবার।ফাস্টফুড, রেডমিট,তৈলাক্ত ভাজাপোড়া,গিলা,কলিজা, মগজ ভুনা,গরুর বট,হাঁসমুরগির স্কিন,কোল্ড ড্রিংকস,ফুলমিল্ক চা,প্যাকেটজাত খাবার এবং যেকোন ধরনের মিষ্টি।

নতুন করে কি খাবার শুরু করবেন?

উপরের লিখা খাবার,অভ্যাস গুলা ওজন কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার সাথে সাথে ছেড়ে দেবেন।আপনার প্রতিদিনের খাবারে যোগ করুন, লাল চালের ভাত,ওটস,লাল আটার রুটি,গ্রিন টি,লোফ্যাট মিল্ক,টকদই, সিজনাল,লোকাল সাইট্রাস ফ্রুটস,সবুজ শাক সবজি,তাজা মাছ,দেশি মুরগি, সব ধরনের সিজনাল সবজি,লেবু।যেকোন প্রজাতির বাদাম (আমন্ড বেশি ভালো)মনে রাখবেন ওয়েট লুজের জন্য সবার আগে লোকাল ফুড কে প্রাধান্য দিবেন।

কতটুকু খাবেন?কি পরিমাণ?

বয়স,উচ্চতা,ওজন ভেদে প্রত্যেকের ডায়েট চার্ট আলাদা,,কেউ কারো টা পুরাপুরি ফলো করলে হিতে বিপরীত হতে পারে,,শুধু বেসিক ব্যাপার গুলো ফলো করবেন,১২০০ ক্যালরি চার্টের সাথে। যদি আপনার বড় কোন রোগ থেকে থাকে,ফিজিক্যাল বড় কোন প্রব্লেম থাকে তবে অবশ্যই আপনার ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ডায়েট শুরু করবেন।

ব্যায়াম কি করবো? কতটুকু করবো?

প্রথমেই হাঁটা শুরু করুন,অল্প করে শুরু করে অন্তত ১ ঘন্টা হাটার অভ্যাস করুন।সময় বেশি পেলে ধীরেধীরে হাঁটার পরিমাণ বাড়ান,পারলে ২ বেলাই হাটুন।সময় না পেলে ছোট ছোট সুযোগ গুলো কাজে লাগান,সাঁতার,ফ্রিহ্যান্ড করুন।আর যদি শারীরিক বড় কোন প্রব্লেম থাকে জীম করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।আপনাকে বুঝতে হবে আপনার শরীরের ডিমান্ড কি? যতটুকু পারবেন করবেন,যদি বেশি ক্লান্ত লাগে,কষ্ট লাগে,শরীরের ইচ্ছার বিরুদ্ধে ব্যায়াম করবেন না,ব্যায়াম কে এনজয় করে করুন।

পানীয় হিসাবে কি সবচেয়ে ভালো?

এককথায় সাদা পানি, এর চেয়ে উত্তম আর কোন ড্রিংকস নাই।১২/১৪ গ্লাস পানি মাস্ট পান করবেন।সারাদিনের খাবারের ফাঁকেফাঁকে গ্রিনটি,ইসবগুলের ভুষি মিক্সড পানি,লেবুপানি,ডাবের পানি, বিকেলে টকদই সবুজ আপেলের মিক্সড স্মুদি খেতে পারেন সুগার ছাড়া।মিষ্টি জাতিয় খাবার কে বিষ ভাববেন।ফ্রুটস জুস খেতে পারেন,ফলে থাকা মিষ্টিই আমাদের শরীরের জন্য যথেষ্ট, তবে পরিমাণ মত খাবেন।পরিমাণ ঠিক রাখা ডায়েটের মূলমন্ত্র।

ফুড ভ্যালু কি?

আপনাকে জানতে হবে খাবারের পুষ্টিগুন ঠিক রেখে খাবার গ্রহন করা।রান্নায় পুষ্টিমান বজায় রাখার নিয়মকানুন বুঝতে হবে।সময় মত খাবার গ্রহন করা একটা বড় ব্যাপার ওয়েট লুজ মিশনে।তাজা এবং টাটকা খাওয়া,প্যাকেটজাত খাবার এড়িয়ে চলা।ইন্সট্যান্ট খাবারের চেয়ে হাতে তৈরি ঘরোয়া খাবার উত্তম।

#মনে রাখবেন যার যার শরীর কন্ডিশন আলাদা,সো কারো ওজন দ্রুত কমে,কারো ধীরে কিন্তু এতে মনোবল হারালে চলবে না, হতাশ না হয়ে ডায়েট এবং ব্যায়াম কে এনজয় করুন,শারীরিক পরিশ্রম কখনো আপনাকে ডিপ্রেশনে যেতে দিবেনা,,কায়িক পরিশ্রম ভালো থাকার পূর্ব শর্ত।

#পরিমানমত খাবার সঠিক সময়ে খাওয়া।

#প্রতিদিন অন্তত একটি ডিম খাবার তালিকায় রাখবেন।

#একসাথে অনেক কিছু শুরু করবেন না,ধীরে চলার নীতি অনুসরণ করুন।অস্থির হবেন না,,একনিষ্ঠ ভাবে লেগে থাকুন লক্ষ স্থির করে,,সফল হবেন,ওজন কমবেই ইনশাআল্লাহ ✌

#বিপজেটিভ
#বি_হেলদি
#বি_এক্টিভ
#বি_ফিট
#ওজন_কমবেই✌

ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন, শুভকামনা সবাইকে…💜💜

0 Shares
Tweet
Share
Share
Pin